১৯ দিনের সেপ্টেম্বর মাস ১৭৫২ সালের অজানা রহস্য

4
Share it, if you like it

কেউ একজন প্রশ্ন করল, “সেপ্টেম্বর মাস কত দিনে হয়?” আমি নিশ্চিৎ আপনি কোন ভুল না করলে উত্তর দেবেন ৩০ দিনে। এই উত্তরটি বর্তমানে সঠিক হলেও আপনি যদি ১৭৫২ সালে ফিরে যান তাহলে আপনার উত্তরটি নিশ্চিৎ ভাবে ভুল প্রমাণিত হবে।কারণ ১৭৫২ সালের সেপ্টেম্বর মাসটি ছিল ১৯ দিনের। কি অবাক হচ্ছেন? যা ই হোক জেনে নেয়া যাক আসলে কি ঘটেছিল ১৭৫২ সালে?

১৭৫২ সালের পূর্বে ইংল্যান্ডে জুলিয়ান ক্যালেন্ডার প্রচলিত ছিল। জুলিয়ান ক্যালেন্ডার অনুযায়ী এক বছর ধরা হত ৩৬৫ দিন ৬ ঘন্টাকে। অন্যদিকে গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ৩৬৫ দিন ৫ ঘন্টা ৪৮ মিনিট ৪৬ সেকেন্ডকে ধরা হয় এক বছর। ইউরোপের অন্যান্য দেশে ১৭৫২ সালের পূর্বেই গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার এর প্রচলন শুরু হয়েছিল কিন্তু ইংল্যান্ডে তখনও জুলিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসরণ করা অব্যহত ছিল। ফলাফল স্বরূপ ইংল্যান্ডের জনগণ আন্তর্জাতিক বিষয় গুলোতে তারিখের বিভ্রান্তির শিকার হতে থাকে। আন্তর্জাতিক গুরুত্বপূর্ণ কর্মকান্ডে প্রায়ই সমস্যার সৃষ্টি হত।

অবশেষে ইংল্যান্ডের পার্লামেন্টে জুলিয়ান ক্যালেন্ডার সংস্কার করে গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসরণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। অনেকেই এই সিদ্ধান্তকে মেনে নিতে দ্বিমত পোষন করেন, কিন্তু পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক সুবিধার কথা চিন্তা করে সকলেই মেনে নিতে বাধ্য হয়। হিসেব করে দেখা যায়, গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ইংল্যান্ড প্রায় ১১ দিন পিছিয়ে ছিল। এর সমধান হিসেবে ২ সেপ্টেম্বরের পর জুলিয়ান ক্যালেন্ডার বর্জন করা হয়, ৩ সেপ্টেম্বরকে ৩+১১ অর্থাৎ ১৪ ই সেপ্টেম্বর হিসেব করার জন্য সকলকে নির্দেশ দেয়া হয়।

২ সেপ্টেম্বর ইংল্যান্ডবাসী সকল প্রকার দপ্তরিক কাজে ২ সেপ্টেম্বর ব্যবহার করে। পরিশ্রান্ত ইংল্যান্ডবাসী ২ সেপ্টেম্বর রাতে ঘুমালেও তাদের ঘুম ভাঙে ১৪ই সেপ্টেম্বরে। মাত্র এক রাতের ব্যবধানে ১১ টি দিন হারিয়ে গেল ইংল্যান্ডের ইতিহাস থেকে।১৭৫২ সালের ৩-১৩ ই সেপ্টেম্বর এই দিন গুলোতে সত্যিই ইংল্যান্ডে কোন শিশুর অগমণী ধ্বনি বাতাসে প্রতিধ্বনি তোলেনি। বিগত বছর গুলোতে ৩-১৩ ই সেপ্টেম্বর যাদের জন্ম হয়েছিল ঐ বছর তাদের জন্মদিনের আনন্দ ছাড়াই বয়স এক বছর বেড়ে গিয়েছিল।

★★ Please make a comment using Facebook profile ★★

অজানা লেখক

সোশ্যাল মিডিয়া থেকে এই লেখাটি নেওয়া হয়েছে। এই প্রবন্ধ বা পোষ্ট লেখকের পরিচয় যতটুকু পেয়েছি, লেখার নীচে দেওয়া হয়েছে। যদি কেউ এই লেখাটির লেখকের সন্ধান বিস্তারিত জেনে থাকেন, দয়া করে অবশ্যই জানাবেন। আমাদের email করুন এই ঠিকানায়, i@pagolerprolap.in অথবা লেখার নীচে কমেন্টে করুন।

অন্যান্য লেখা

4 Comments

Leave A Reply