আপনার নামের প্রথম অক্ষর কি S?

1
Share it, if you like it

নামের প্রথম অক্ষর ‘S’ হলে আপনার চরিত্র আসলে এই রকম…
নামের প্রথম অক্ষর ‘S’ হওয়াটা বেশ প্রচলিত ৷ বহু জাতক-জাতিকার নামই শুরু হয় ‘S’ দিয়ে ৷ নামের আদ্যক্ষর থেকেও কিন্তু ব্যক্তির স্বভাব-চরিত্র সম্বন্ধে জানা যায় ৷ দেখে নেওয়া যাক আপনার নামের আদ্যক্ষর ‘S’ হলে কেমন হবে আপনার চরিত্রিক বৈশিষ্ট্যঃ —

১। যেসব জাতক জাতিকার নামের আদ্যক্ষর ‘S’ তাদের জীবনে হালকা নীল বেগুনি রং শুভ প্রভাব ফেলে।

২। এরা নিজেদের কঠোর নিয়মাবলীর মধ্যে ঢেকে রাখে।

৩। এরা জীবনের চলার পথের অনুশাসনগুলি নিজেরা যেমন মেনে চলে তেমনই তাদের কাছাকাছি যারা থাকে তাদেরও মেনে চলতে শেখায়।

৪। যারা অনুশাসনের ব্যতিক্রমী, তাদের এড়িয়ে চলা এদের স্বভাবের বৈশিষ্ট্য। এতে নিজের ক্ষতি হলেও তাতে কোন রকম ভ্রুক্ষেপ করে না।

৫। এদের জীবনের মৌলিক গবেষণা এবং নব নব চিন্তাধারা অন্যের চিন্তা ভাবনার খোরাক জোগায়। তাতে তাদের উত্তরসূরীরাও সমানভাবে উপকৃত হয়।

৬। এরা আইনের অনুশাসন মেনে চললেও অনুশাসনকেই আইনে রূপান্তরিত করতে সচেষ্ট হয়।

৭। এরা যথেষ্ট সুরসিক হয়। নিজের এবং অন্যের দোষ ত্রুটিগুলো হাসি ঠাট্টার মাধ্যমে উপস্থাপনা করে।

৮। এরা গুরুতর বিষয়গুলো হালকা করে দিতে সক্ষম। অবশ্য নিজের চরিত্রের এই বিপরীত প্রভাবটি আখেরে তাঁর দুঃখ কষ্টকে বাড়িয়ে দেয়।

৯। এদের জীবনে প্রচুর কষ্ট করে প্রতিষ্ঠা লাভ করতে হয়।

অজানা লেখক

সোশ্যাল মিডিয়া থেকে এই লেখাটি নেওয়া হয়েছে। এই প্রবন্ধ বা পোষ্ট লেখকের পরিচয় যতটুকু পেয়েছি, লেখার নীচে দেওয়া হয়েছে। যদি কেউ এই লেখাটির লেখকের সন্ধান বিস্তারিত জেনে থাকেন, দয়া করে অবশ্যই জানাবেন। আমাদের email করুন এই ঠিকানায়, i@pagolerprolap.in অথবা লেখার নীচে কমেন্টে করুন।

অন্যান্য লেখা

1 Comment

Leave A Reply