যে সব কারণে নষ্ট হচ্ছে আপনার কিডনি, জেনে নিন

0

কেন নষ্ট হচ্ছে আপনার কিডনি ?
বেঁচে থাকতে মানবদেহের যে অঙ্গ সজীব থাকা খুবই জরুরি তা হলো কিডনি। সুস্থ মানবদেহে দুটো করে কিডনি থাকে। একটি নষ্ট হলে আরেকটি দিয়েও কাজ হয়। কিন্তু নষ্ট হওয়ার আগেই যদি যেনে রাখা যায় কি কি অনিয়মের কারনে কিডনি নষ্ট হয়, তা সুস্থ থাকার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়।

যে করনে নষ্ট হচ্ছে আপনার কিডনি :
•►১. পরিমান মতো জল পান না করা। প্রতিদিন প্রতিটি মানুষেরই উচিৎ ৮-১০ গ্লাস জল পান করা। জল ঠিকভাবে বা পরিমান মতো পান না করলে শুধু কিডনিই নয় দেহের অন্য অঙ্গও নষ্ট হতে পারে। যেমন যকৃতের ওপর চাপ পড়তে পারে। তাই প্রতিদিন পরিমান বা তার বেশি পরিমান পান করলে কিডনির উপর চাপ কম পড়ে।

•►২. লবণ বা এসিডিক খাবার বেশী খাওয়া। আমাদের খাবারের মাঝে লবণের উপস্থিতি অত্যন্ত জরুরী। কারন লবনাক্ততা স্বাদকে একত্রিত করে। কিন্তু মাত্রাতিক্ত লবণ গ্রহনের ফলে কিডনি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই বেশী লবণ খাওয়া যাদের বদঅভ্যাস আছে তারা একটু চিন্তা করে লবণ খাবেন।

•►৩. প্রতিদিন অনেক কাজ থাকে সবারই। সময়ের কারনে অনেকেই প্রস্রাব আটকে রাখেন এবং তা দেরিতে ত্যাগ করেন। এটা মোটেও উচিৎ নয়। এতে করে কিডনির উপর মারাত্মক চাপ পড়ে।

•►৪. নিজের প্রতি গাফিলতা একটা বড়ো কারণ। অনেকেই জানেন তার শরীরে সংক্রমন আছে কিন্তু সে অনুযায়ী চিকিৎসা করেননা। সংক্রমণ যদি বেশি পরিমানে ভিড় করে তবে কিডনি তো যাবেই সাথে অন্য অঙ্গও যাবে।
•►৫. বেশি বেশি মাংস জাতীয় খাবার খাওয়া। অনেক সময় মাংস বদ হজমের কারন হয়। তাই বেশি মাংস খাওয়া কিডনি নষ্ট হওয়ার একটা বড় কারণ।

•►৬. পরিমান মতো খাবার না খেলে কিডনি নষ্ট হয়ে যায়। তাই ক্ষুধা হলে সাথে সাথেই খাবার খাওয়া দরকার।

•►৭. অনিয়মিতভাবে ঔষধ সেবন করলে কিডনি নষ্ট হওয়ার ঝুঁকি থাকে অনেক বেশি। তাই সঠিক সময় মতো ঔষধ সেবন করতে হবে।

•►৮. নিয়মিত না ঘুমালে বা বিশ্রাম না নিলে কিডনির সমস্যাতো হয়ই সাথে শরীরের অন্য অঙ্গেরও সমস্যা হয়।

•► জ্ঞান মানুষের জীবনে কখনও ক্ষতির কারণ হয়না। বরং উপকার বয়ে আনে। নিজের প্রতি নিজের যত্নের বিষয়টাও জেনে রাখলে এবং সেই মতে নিয়মগুলো মেনে চললে সুস্থ থাকা যায়।

আপনার পাশের বন্ধুকে এই পোস্ট গুল পড়ার জন্য অবশ্যই লাইক কমেন্ট শেয়ার করুন। নিজে জানুন অন্যকে জানার জন্য সাহায্য করুন।

Share.

About Author

সোশ্যাল মিডিয়া থেকে এই লেখাটি নেওয়া হয়েছে। এই প্রবন্ধ বা পোষ্ট লেখকের পরিচয় যতটুকু পেয়েছি, লেখার নীচে দেওয়া হয়েছে। যদি কেউ এই লেখাটির লেখকের সন্ধান বিস্তারিত জেনে থাকেন, দয়া করে অবশ্যই জানাবেন। আমাদের email করুন এই ঠিকানায়, i@pagolerprolap.in অথবা লেখার নীচে কমেন্টে করুন।

Leave A Reply