সিভিল সার্ভিসেস এগজামিনেশন, ২০১৮ এবং ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিস এগজামিনেশন ২০১৮-র জন্য দরখাস্ত নেওয়া শুরু হল

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +
  • Government Jobs
  • India

Website UPSC

সিভিল সার্ভিসেস এগজামিনেশন, ২০১৮ এবং ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিস এগজামিনেশন ২০১৮-র জন্য দরখাস্ত নেওয়া শুরু হল। আবেদন করতে হবে অনলাইনে, ৬ মার্চ ২০১৮ তারিখের মধ্যে। সিভিল সার্ভিসেস এগজামিনেশন, ২০১৮-র এই নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি নম্বর 04/2018-CSP, ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিস এগজামিনেশন ২০১৮-র নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি নম্বর 05/2018-IFoS. দুটি বিজ্ঞপ্তিই প্রকাশের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮। প্রার্থী বাছাই করবে ইউনিয়ন পাবলিক সার্ভিস কমিশন। দুটি চাকরির জন্যই, প্রথমে সিভিল সার্ভিসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় বসতে হবে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হবে ৩ জুন, ২০১৮ তারিখে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় পাশ করার পর মেন পরীক্ষা হবে আলাদা-আলাদা ভাবে। শূন্যপদ সিভিল সার্ভিসে ৭৮২, ফরেস্ট সার্ভিসে ১১০। তপশিলি, ওবিসি, শারীরিক প্রতিবন্ধী, প্রাক্তন সমরকর্মী প্রভৃতির জন্য নিয়মানুযায়ী পদসংরক্ষণ ও বয়সের ছাড় আছে। সিভিল সার্ভিস এগজামিনেশন, ২০১৮-র মাধ্যমে নিয়োগ হবে এই সার্ভিস/পদগুলিতে: (১) ইন্ডিয়ান অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস (২) ইন্ডিয়ান ফরেন সার্ভিস  (৩) ইন্ডিয়ান পুলিস সার্ভিস (৪) ইন্ডিয়ান পি অ্যান্ড টি অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফিনান্স সার্ভিস, গ্রুপ এ (৫) ইন্ডিয়ান অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস সার্ভিস, গ্রুপ এ (৬) ইন্ডিয়ান রেভিনিউ সার্ভিস (কাস্টমস অ্যান্ড সেন্ট্রাল এক্সাইজ) গ্রুপ এ (৭) ইন্ডিয়ান ডিফেন্স অ্যাকাউন্টস সার্ভিস, গ্রুপ এ (৮) ইন্ডিয়ান রেভিনিউ সার্ভিস (আইটি) গ্রুপ এ (৯) ইন্ডিয়ান অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরিজ সার্ভিস, গ্রুপ এ (অ্যাসিস্ট্যান্ট ওয়ার্কস ম্যানেজার, অ্যাডমিনিস্ট্রেশন) (১০) ইন্ডিয়ান পোস্টাল সার্ভিস, গ্রুপ এ (১১) ইন্ডিয়ান সিভিল অ্যাকাউন্টস সার্ভিস, গ্রুপ এ (১২) ইন্ডিয়ান রেলওয়ে ট্রাফিক সার্ভিস, গ্রুপ এ (১৩) ইন্ডিয়ান রেলওয়ে অ্যাকাউন্টস সার্ভিস, গ্রুপ এ (১৪) ইন্ডিয়ান রেলওয়ে পার্সোনেল সার্ভিস, গ্রুপ এ (১৫) পোস্ট অব অ্যাসিস্ট্যান্ট সিকিউরিটি কমিশনার ইন রেলওয়ে প্রোটেকশন ফোর্স, গ্রুপ-এ (১৬) ইন্ডিয়ান ডিফেন্স এস্টেট সার্ভিস, গ্রুপ এ (১৭) ইন্ডিয়ান ইনফরমেশন সার্ভিস (জুনিয়র গ্রেড) গ্রুপ এ (১৮) ইন্ডিয়ান ট্রেড সার্ভিস, গ্রুপ এ (১৯) ইন্ডিয়ান কর্পোরেট ল সার্ভিস, গ্রুপ এ (২০) আর্মড ফোর্সেস হেডকোয়ার্টার্স সিভিল সার্ভিস, গ্রুপ বি (সেকশন অফিসার’স গ্রেড) (২১) দিল্লি, আন্দামান অ্যান্ড নিকোবর আয়ল্যান্ডস, লাক্ষাদ্বীপ, দমন অ্যান্ড দিউ, দাদরা অ্যান্ড নগর হাভেলি সিভিল সার্ভিস, গ্রুপ বি (২২) দিল্লি, আন্দামান অ্যান্ড নিকোবর আয়ল্যান্ডস, লাক্ষাদ্বীপ, দমন অ্যান্ড দিউ, দাদরা অ্যান্ড নগর হাভেলি পুলিস সার্ভিস, গ্রুপ বি (২৩) পন্ডিচেরি সিভিল সার্ভিস গ্রুপ বি (২৪) পন্ডিচেরি পুলিশ সার্ভিস গ্রুপ বি। সিভিল সার্ভিস এগজামিনেশন, ২০১৮-র জন্য শূন্যপদ: মোট ৭৮২। ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিস এগজামিনেশন ২০১৮-র শূন্যপদ: ১১০। দুক্ষেত্রেই তপশিলি, ওবিসি, শারীরিক প্রতিবন্ধী, প্রাক্তন সমরকর্মী প্রভৃতির জন্য নিয়মানুযায়ী পদসংরক্ষণ ও বয়সের ছাড় আছে।

বয়সসীমা: (দুক্ষেত্রেই) ১ আগস্ট, ২০১৮ তারিখের হিসাবে প্রার্থীর বয়স হতে হবে ন্যূনতম ২১ বছর। বয়সের ঊর্ধ্বসীমা ৩২ বছর। অর্থাৎ জন্মতারিখ হতে হবে ২ আগস্ট, ১৯৮৬ থেকে ১ আগস্ট ১৯৯৭ তারিখের মধ্যে। যথাযথ ক্ষেত্রে বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাওয়া যাবে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা: সিভিল সার্ভিস এগজামিনেশন, ২০১৮-র জন্য যে-কোনো শাখায় গ্র‌্যাজুয়েট। ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিস এগজামিনেশন ২০১৮-র জন্য গ্র‌্যাজুয়েট হতে হবে এই বিষয়গুলির মধ্যে অন্তত একটি নিয়ে: অ্যানিমাল হ্যাজব্যান্ড্রি অ্যান্ড ভেটেরিনারি সায়েন্স, বটানি, কেমিস্ট্রি, জিওলজি, ম্যাথমেটিক্স, ফিজিক্স, স্ট্যাটিস্টিক্স ও জুলজি। অথবা এগ্রিকালচার বা ফরেস্ট্রিতে বা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ব্যাচেলর ডিগ্রি থাকতে। এবারের গ্র‌্যাজুয়েশনের পরীক্ষার্থীরাও শর্তসাপেক্ষে আবেদন করতে পারবেন, সেক্ষেত্রে যোগ্যতা সম্পূর্ণ করার প্রামাণপত্র পেয়ে থাকতে হবে মূল পর্বের পরীক্ষায় আবেদন করার সময়। মূল পর্বের পরীক্ষার জন্য দরখাস্ত চাওয়া হবে সিভিল সার্ভিসের জন্য সম্ভবত সেপ্টেম্বরে, ফরেস্ট সার্ভিসের ক্ষেত্রে জুলাই-আগস্টে। সিভিল সার্ভিস এগজামিনেশন, ২০১৮ এবং ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিস এগজামিনেশন ২০১৮-র ক্ষেত্রে সাধারণ ক্যাটেগরির প্রার্থীরা ছয় বার এই পরীক্ষায় বসতে পারবেন। যাঁরা ইতিমধ্যেই ছ পরীক্ষা দিয়েছেন কিন্তু সফলতা পাননি তাঁরা এই পরীক্ষায় বসার জন্য অন্যান্য যোগ্যতা থাকলেও আবেদন করতে পারবেন না। ওবিসি ও সাধারণ শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীরা ৯ বার এই পরীক্ষায় বসতে পারবেন। তপশিলি প্রার্থীদের ক্ষেত্রে এই পরীক্ষায় বসার কোনো বারের সীমা নেই। পরীক্ষা দিতে গেলে বা আংশিক পরীক্ষা দিলেও একবারের সুযোগ নেওয়া হয়েছে ধরা হবে। শারীরিক মাপজোক: কয়েকটি পদের ক্ষেত্রে দৃষ্টিশক্তি সংক্রান্ত কিছু বাধ্যবাধকতা আছে। বিস্তারিত জানা যাবে ওয়েবসাইটে।

পরীক্ষা পদ্ধতি: লিখিত পরীক্ষা হবে দুটি ধাপে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ও মেন পরীক্ষা সহ ইন্টারভিউ। সবাইকেই প্রথমে সিভিল সার্ভিসের প্রিলিতে বসতে হবে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় দুটি পেপার থাকবে। প্রতি পেপারে ২০০ নম্বর করে প্রশ্ন। সময় প্রতি পেপারে ২ঘণ্টা করে। দুটি পেপারেই প্রশ্ন হবে অবজেক্টিভ টাইপের। জেনারেল স্টাডিজ পেপার-টু কেবল পাশ করতে হবে (৩৩ শতাংশ নম্বর) এই পেপারের নম্বর মেধাতালিকায় যোগ হবে না। প্রশ্ন থাকবে ইংরাজি ও হিন্দি ভাষায়। নেগেটিভ মার্কিং থাকবে (৩টি ভুলের জন্য ১ নম্বর বাদ যাবে) এক প্রশ্নের একাধিক উত্তর চিহ্নিত করলেও ভুল ধরা হবে অতএব নেগেটিভ মার্কিং হবে। কোনো প্রশ্নের উত্তর আদৌ চিহ্নিত না করলে তার জন্য কোনো নেগেটিভ মার্কিং হবে না। পরীক্ষার সিলেবাস, পরীক্ষা পদ্ধতি ও প্রশ্নপত্রের ব্যাপারে বিস্তারিত জানা যাবে নিচের ওয়েবসাইট থেকে।

মূল পর্বের পরীক্ষাসিভিল সার্ভিস এগজামিনেশন, ২০১৮-র মেন পরীক্ষা হবে এসে টাইপের ৯টি পেপারে, তার মধ্যে ২টি পেপার (পেপার-এ-তে সংবিধানের ৮ম তফশিলভুক্ত কোনো ভাষা, পেপার-বিতে ইংরেজি ভাষা: ২টিতেই ৩০০ করে নম্বর, প্রশ্ন মাধ্যমিক মানের) হবে কোয়ালিফাইং মানের অর্থাৎ তাতে পাশ নম্বর অর্থাৎ ২৫ শতাংশ নম্বর তুলতেই হবে কিন্তু তার নম্বর মেধাতালিকার জন্য যোগ হবে না। বাকি ৭টি পেপারের প্রতিটিতে ২৫০ করে মোট নম্বর ১৭৫০, সময় ৩ ঘণ্টা করে। ৭টি পেপার হল: ১. জেনারেল সটোডিজ-ওয়ান, টু, থ্রি, ফোর, অপশনাল পেপার-ওয়ান, টু। অপশনাল বিষয় বাছা যাবে ২৬টি বিষয়ের মধ্যে থেকে। সেগুলির নম্বর মেধাতালিকায় যোগ হবে। এই ৭ পেপারের পরীক্ষা দেওয়া যাবে সংবিধানের ৮ম তপশিলভুক্ত যে-কোনো ভাষায়। এই পর্বের বিস্তারিত সিলেবাস দেখে নেওয়া যাবে ওয়েবসাইটে। এই বিভাগে সফল হলে পার্সোন্যালিটি টেস্ট হবে ২৭৫ নম্বরের। মোট দাঁড়াল ২০২৫ নম্বরের পরীক্ষা। ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিস এগজামিনেশন ২০১৮-র ক্ষেত্রে মেন পরীক্ষায় ৬টি পেপার থাকবে, মোট নম্বর ১৪০০। প্রথম পেপারে জেনারেল ইংলিশের উপর প্রশ্ন থাকবে। মোট নম্বর ৩০০। দ্বিতীয় পেপারে জেনারেল নলেজের উপর প্রশ্ন থাকবে ৩০০ নম্বরের। ততীয়, ৪র্থ, ৫ম ও ৬ষ্ঠ পেপারে থাকবে ২টি করে ভাগ (১৪টি বিষয়ের মধ্যে থেকে ২টি বেছে নিতে হবে, সেই দুই বিষয়ের প্রতিটির ১ম পত্র ও ২য় পত্র হিসাবে ৪ পেপারে মোট ৪টি ভাগ), প্রতি ভাগে ২০০ করে নম্বর। প্রশ্ন থাকবে ইংরাজিতে এবং উত্তর দিতে হবে ইংরাজিতেই। মেন পরীক্ষায় সফল হলে ইন্টারভিউ হবে ৩০০ নম্বরের।

পরীক্ষাকেন্দ্র: পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের প্রার্থীদের জন্য প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হবে কলকাতা, শিলিগুড়ি, আগরতলা, কটক, ডিসপুর, পাটনা, পোর্ট ব্লেয়ার, রাঁচি, সম্বলপুর, জোরহাট, গ্যাংটক, শিলং, কোহিমা, ইম্ফল, ইটানগর ও আইজল কেন্দ্রে। প্রার্থী কোন কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে ইচ্ছুক অনলাইন আবেদনের সময় সেটির উল্লেখ করতে হবে। সিভিল সার্ভিস মূল পর্বের পরীক্ষা পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে হবে কলকাতা, পাটনা, কটক, ডিসপুর, রাঁচি, শিলং ও আইজলে। ফরেস্ট সার্ভিস মূল পর্বের পরীক্ষা হবে কলকাতা, ডিসপুর ও পোর্ট ব্লেয়ারে।

অ্যাডমিট কার্ড: প্রার্থীদের আলাদাভাবে ডাকযোগে অ্যাডমিট কার্ড পাঠানো হবে না। পরীক্ষার তিন সপ্তাহ আগে প্রার্থীদের নামে ই-অ্যাডমিশন সার্টিফিকেট (অ্যাডমিট কার্ড) আপলোড করা হবে। www.upsc.gov.in ওয়েবসাইট থেকে ওই অ্যাডমিট কার্ডটি ডাউনলোড করতে হবে।

আবেদনের ফি: এখন আবেদন করতে হবে শুধু প্রিলিমিনারি পরীক্ষার জন্য, তার ফি ১০০ টাকা। অনলাইন এবং অফলাইন উভয় পদ্ধতিতেই ফি জমা দেওয়া যাবে। অফলাইনে দিতে চাইলে এই প্রাথমিকের অনলাইন আবেদনের পার্ট-টু রেজিস্ট্রেশনের সময় পে বাই ক্যাশ অপশনে ক্লিক করে নির্দিষ্ট চালান (পে-ইন স্লিপ) পাওয়া যাবে। ওই স্লিপটি নিয়ে এসবিআই ব্যাঙ্কের যে-কোনো শাখায় নগদে ফি জমা দেওয়া যাবে। পার্ট-টু রেজিস্ট্রেশনের পরবর্তী কাজের দিন ব্যাঙ্কের কাজের সময়ের মধ্যে ফি জমা দিতে হবে। ৫ মার্চ, ২০১৮ তারিখ রাত ১১টা ৫৯ মিনিটের পর পে বাই ক্যাশ মোডটি বন্ধ হয়ে যাবে। ওই সময়ের মধ্যে ডাউনলোড করেও পরের দিন ব্যাঙ্কের কাজের সময়ের মধ্যে টাকা জমা দেওয়া না গেলে বিকেল ৬টার মধ্যে অনলাইনে দেওয়া ছাড়া গত্যন্তর থাকবে না। অনলাইনে ফি জমা দেওয়া যাবে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ায় নেট ব্যাঙ্কিং/ভিসা/ মাস্টার/রুপে/ ক্রেডিট/ ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে। অনলাইন ফি জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৬ মার্চ, ২০১৮ তারিখ সন্ধে ৬টা। তপশিলি, শারীরিক প্রতিবন্ধী এবং মহিলা প্রার্থীদের কোনো ফি লাগবে না। একাধিক আবেদন করবেন না। যদি কোনো কারণে একাধিক আবেদন হয়ে যায় সেক্ষেত্রে শুধু উচ্চতর রেজিস্ট্রেশন আইডির আবেদনটিই গ্রাহ্য হবে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় সফল হলে আবেদন করা যাবে শুধু সিভিল সার্ভিস (মেন) বা শুধু ফরেস্ট সার্ভিস (মেন) বা দুই পরীক্ষার জন্যই, সেক্ষেত্রে আবেদনের ফি দিতে হবে প্রতি ক্ষেত্রে ২০০ টাকা করে।

আবেদনের পদ্ধতি: প্রিলিমিনারি পরীক্ষার জন্য আবেদন করতে হবে শুধুমাত্র অনলাইনে। www.upsconline.nic.in ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদনপত্র পূরণ করতে পারবেন। অনলাইনে আবেদন করার আগে নিজের পাসপোর্ট সাইজের ছবি ও সই জেপেগ ফরম্যাটে স্ক্যান করে কম্পিউটারে রাখবেন। ছবির মাপ ৪০ কেবির বেশি হবে বা ৩ কেবির কম যেন না হয়। সই-এর মাপ ৪০ কেবির বেশি বা ১ কেবির কম হবে না। প্রার্থীর বৈধ ইমেল আইডি থাকতে হবে। ওয়েবসাইটে দেওয়া নির্দেশ অণুযায়ী ফর্ম পূরণ করবেন। বয়স, শিক্ষাগত যোগ্যতা, আবেদনের পদ্ধতি, ফি জমা দেওয়ার পদ্ধতি সহ এব্যাপারে খুঁটিনাটি তথ্য www.upsc.gov.in এবং www.upsconline.nic.in ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে। হেল্পলাইন নম্বর: ০১১-২৩৩৮৫২৭১/২৩৩৮১১২৫/২৩০৯৮৫৪৩। অনলাইন আবেদন অথবা এ ব্যাপারে কোনো জিজ্ঞাসা থাকলে যে-কোনো কাজের দিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টার মধ্যে ওই নম্বরগুলিতে ফোন করতে পারেন।

To apply for this job please visit the following URL: http://www.upsconline.nic.in →

Share.

About Author

আমার নিঃশব্দ কল্পনায় দৃশ্যমান প্রতিচ্ছবি, আমার জীবনের ঘটনা, আমার চারপাশের ঘটনার কেন্দ্রবিন্দু থেকে লেখার চেষ্টা করি। প্রতিটি মানুষেরই ঘন কালো মেঘে ডাকা কিছু মুহূর্ত থাকে, থাকে অনেক প্রিয় মুহূর্ত এবং একান্তই নিজস্ব কিছু ভাবনা, স্বপ্ন। প্রিয় মুহূর্ত গুলো ফিরে ফিরে আসুক, মেঘে ডাকা মুহূর্ত গুলো বৃষ্টির সাথে ঝরে পড়ুক। একান্ত নিজস্ব ভাবনা গুলো একদিন জীবন্ত হয়ে উঠবে সেই প্রতীক্ষাই থাকি।