ঘুষ

0
লেখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করুন
  • 13
    Shares


ক্লাস থ্রি তে পড়া রৌনকের বেস্ট ফ্রেন্ড সায়ন্তনের বাবা ঘুষ নিতে গিয়ে ধরা পড়েছে। “ঘুষ” জিনিষটা রৌনকের খুব পছন্দ। মার সঙ্গে অসীমকাকুর বাড়ীতে যেদিন গিয়েছিল, সেদিন অসীমকাকু ওকে একগাদা চকোলেট দিয়েছিল। রৌনক চকোলেট খেতে খুব ভালোবাসে। কিন্তু ওর মা ওকে চকোলেট খেতে দ্যায় না। তাতে নাকি লিভারের আর দাঁতের সমস্যা হবে। সেদিনও মা প্রচণ্ড রাগারাগি করেছিল। কিন্তু অসীমকাকু মার লাল টুকটুকে ঠোঁটে চকাস করে একটা হামি খেয়ে বলেছিল, আরে এত রাগ কিসের? কুল বেবি কুল। বোঝনা কেন, তোমার সঙ্গে এতটা সময় কাটাব। তাই ও যাতে ডিস্টার্ব না করে সেইজন্য ওকে “ঘুষ” দিলাম।

রৌনক ভাবল সায়ন্তনকে বলতে হবে ওর বাবার থেকে কয়েকটা চকোলেট চেয়ে আনার কথা।

নাম: শ্রীদীপ, পেশা: ব্যাবসা
নেশা: রাস্তার কুকুরের পরিচর্যা (আমার সীমিত ক্ষমতার মধ্যে যতখানি সম্ভব)। পড়তে খুব ভালোবাসি, যে কোনো বই, যে কোনো লেখকের।প্রিয় লেখক: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, প্রভাত কুমার মুখোপাধ্যায়, সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়, হুমায়ূন আহমেদ, সমরেশ বসু, সমরেশ মজুমদার, সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ, মতি নন্দী, দূলেন্দ্র ভৌমিক এবং সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায় ও শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় হালফিলের লেখকদের মধ্যে স্মরণজিত চক্রবর্তী, স্বপ্নময় চক্রবর্তীর লেখা ভালো লাগে। ভালো লাগে গান গাইতে আর অবশ্যই লেখালেখি করতে। অনেক বেশি বলা হয়ে গেল বোধহয়।


লেখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করুন
  • 13
    Shares

★আপনার মূল্যবান মন্তব্য দিয়ে আমাদের পথ চলা ধারাকে অব্যাহত রাখুন★

★ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে কমেন্ট করুন★

Leave A Reply