নয় নয় করে বারচারেক দাপিয়ে আসলাম দলমায়

0
লেখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করুন

নয় নয় করে বারচারেক দাপিয়ে আসলাম দলমায়। দলমা রেঞ্জ আসলে অনেকটাই বড়। বাঙলা-ঝাড়খন্ডের বহু সুন্দর জায়গাই এর ভেতর পড়ে। তবে টাটানগরের দিক থেকে ঢোকার যে রাস্তা ওটাই এখন দলমা পর্যটন এর কেন্দ্র। পাহাড়ের উপরে আর নীচে দুটো অসাধারণ ফরেস্ট রেষ্ট হাউস। অসাধারণ সব অর্থেই। সুবিধা, দৃশ্যপট, location, রোমাঞ্চ… হুঁ, সর্ব্বাথেই। তবে যা হয় আরকি, সুন্দর কিছুকে তছনছ করার জন্য কিছু মানুষ থাকেই সব যায়গায়। এখানেও বা ব্যতিক্রম হবে কেন! তাই মাইক আর পিকনিকের অসভ্যতা এড়ানোর জন্য শীতকালটা বাদ দিন। আমি বলব বর্ষাই জঙ্গল দেখার সেরা সময়। হাতি, সাপ এইসব সহজেই পেয়ে যাবেন, আর পাহাড়ের মাথায় মন্দির দেখার ভক্ত পাবেন কম। মন্দিরের উপরে গুহা, তারও উপরের ভিউ পয়েন্ট দেখতে ভুলবেন না।
বুকিং হয় জামশেদপুরের বন দপ্তরের অফিস থেকে। ব্যাগ গুছিয়ে নিন, না গেলে মিস করবেন কিন্তু। অপটু হাতে তোলা কিছু ফটো দিলাম সাথে দুটো ভিডিও লিঙ্ক।

আর হ্যাঁ, জামশেদপুর থেকে যাওয়ার হাইওয়ে সম্প্রসারণ হচ্ছে তাই রাস্তা একটু খারাপ। বাহারাগোড়া থেকে জামশেদপুর এর রাস্তাও তাই। সেক্ষেত্রে বান্দোয়ানের দিক থেকে ডিমনা লেক দেখে যাওয়াই ভালো। এই দিকের প্রকৃতিও চোখ ধাঁধান, আপনাকে একবারে রেহাই দেবেনা।

সোশ্যাল মিডিয়া থেকে এই লেখাটি নেওয়া হয়েছে। এই প্রবন্ধ বা পোষ্ট লেখকের পরিচয় যতটুকু পেয়েছি, লেখার নীচে দেওয়া হয়েছে। যদি কেউ এই লেখাটির লেখকের সন্ধান বিস্তারিত জেনে থাকেন, দয়া করে অবশ্যই জানাবেন। আমাদের email করুন এই ঠিকানায়, i@pagolerprolap.in অথবা লেখার নীচে কমেন্টে করুন।


লেখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করুন

★আপনার মূল্যবান মন্তব্য দিয়ে আমাদের পথ চলা ধারাকে অব্যাহত রাখুন★

★ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে কমেন্ট করুন★

Leave A Reply