তোর জগতে কি আমি আছি????

তোর জগতে কি আমি আছি???? ~ দেবলীনা ভট্টাচার্য্য মুঠোফোনে বন্দী করেছি আজ দুনিয়া! তোর ব্যস্ততার থেকে সে জগৎ অনেকটাই আলাদা তুই বলিস আমার সব খবর নাকি; সোশ্যাল মিডিয়া আজ তোকে দেয়। তাই দেখেই তুই বুঝে নিস, আমার বর্তমান অবস্থা- সেই কারণে আলাদা করে , আর ফোনও করার দরকার হয়না তোর। সেটা হয়তো তোর ভাবনা! আমি কিন্তু আজও তোর
Complete Reading

বাবা সব বুঝতে পারে তোকে!~ সুবীর মুখোপাধ্যায় ঐ দ্যাখ মেয়ে, ওটা ‘অরিয়ন’, কালপুরুষ যার নাম, আর ওটা সপ্তর্ষিমণ্ডল! রাতের আকাশ, ছাদে একটি কাঠির মাদুর পাতা টবে, সন্ধ্যার বেলফুল, দখিনা বাতাস সুগন্ধ ছড়ায়! ‘তারা’ চিনিয়েই চলে ছোট্ট মেয়েটিকে তার বাবা। এই মেয়ে, ভিক্টোরিয়ায় যাবি? ওখানে সবুজ সবুজ ঘাসে অনেক জলরং, অনেক রঙীন প্রজাপতিরা উড়ছে, ছবি আঁকতে
Complete Reading

কথোপকথন ~ সুবীর মুখোপাধ্যায় কবিতা লেখেন কেন? – আমি তো লিখি না। কে যেন লেখায়! এভাবেই কবিতারা আসে! কবিতা কখন আসে? – যে কোন সময় – সকালে, বিকেলে, রাতে, মাঝরাতে। কবিতা ভীষণ অভিমানী। তখনই তাকে ধরে ফেলতে হয়, না হলে মুখ ফিরিয়ে সে চলে যায়। ভালবাসা কী? – চলে আসার সময় মুখ নীচু করে আঙুলে
Complete Reading

কথাটা সত্যি নয় ~ সুবীর মুখোপাধ্যায় তোমায় দেখলাম সেদিন গড়িয়াহাটের মোড়ে একটা শাড়ীর দোকানে গাড়ীটা দাঁড় করিয়ে তুমি ঢুকে গেলে। বেশ দেখাচ্ছিল তোমায়! তুমি এখন বেশ সুখী দেখে মনে হয়। মনে পড়ে তুমি বলেছিলে – তুমি পাগল হয়ে যাবে আমাকে না পেলে। একটা বয়সের আবেগে ওরকম হয়, কথাটা আজ আর সত্যি নয়। ~ সুবীর মুখোপাধ্যায়

একুশ বসন্তে ~ সুবীর মুখোপাধ্যায় কাল তুমি এসেছিলে ফিরে একুশ বসন্তে! সেই সেদিনের পথ স্টেশন থেকে চলে গেছে তোমার বাড়ীতে। বাগান ঘেরা বাড়ী, পথের দুধারে কোনা কোনা ইঁটের সারি তোমার পরনে কুঁচি দেওয়া শাড়ী, একুশ বসন্তে! রঙ্গন গাছে সেই সেদিনের মতো প্রজাপতির ওড়াউড়ি, শিউলির ফুল পড়েছিল মাটিতে, একুশ বসন্তে! এতগুলো দীর্ঘ দহন দিন শেষে তুমি
Complete Reading

খোঁজা ~  হারিয়ে যাওয়া প্রেমিকার খোঁজে তোমায় খুঁজতে খুঁজতে আকাশের কাছে গিয়েছি, আকাশ বললো – রোজই তো তাকে দেখি ৷ খুঁজে দ্যাখ, পাবি না কি আবার ? কখনো হয় নাকি তা, একি ? আমি তখন গেলাম হাওয়ার কাছে, হাওয়া বললো, রোজই তো তাকে ছুঁই, তারপর তো ভেসে ভেসে আসি তোর কাছে, তারপর তোকে স্পর্শ করে
Complete Reading

Create Account



Log In Your Account