Aperture (Depth of field), Shutter Speed, ISO & Exposure – ক্যামেরা বেসিক্স – ৩য় পর্ব

0
Share it, if you like it

গত ২ পর্বে আমরা বিভিন্ন ক্যামেরা নিয়ে আলোচনা করেছি। আমরা Point and Shoot, DSLR আর MILC ক্যামেরার দোষ-গুন সম্বন্ধে জেনেছি আর মোটামুটি ভাবে এটাও বুঝেছি যে ক্যামেরা কেনার সময় কি কি বিচার করব। সেই আলোচনায় অনেকেই বলেছেন ক্যামেরার বেসিক ফাংশানিং নিয়ে একটা পোস্ট করতে। এই উইকএন্ডের পোস্ট-টায় তাই আমি বেসিক ক্যামেরা ফাংশান নিয়ে নিজের ভাবনাচিন্তা আলোচনা করব। মনে রাখবেন যে আজকের আলোচনা Point and Shoot, DSLR, Mirrorless এমনকি মোবাইল – সব ক্ষেত্রে প্রযোজ্য ।
পোস্ট এর হেডলাইন থেকেই পরিস্কার আজ আমরা ৪টে বেসিক জিনিস নিয়ে আলোচনা করব আর এই ৪ এর খেলা কি ভাবে ভাল ছবি তুলতে সাহায্য করে তা ডিকোড করার চেষ্টা করব। একেবারেই Beginners এর Perspective থেকে লেখা – কোথাও বুঝতে অসুবিধা হলে কমেন্ট এ বলবেন।

Aperture বলতে গোদা বাংলায় একটা ছিদ্র যা দিয়ে বাইরের আলো ক্যামেরায় প্রবেশ করে। Aperture settings (AV in Canon Cameras and A in Nikon) এর মাধ্যমে আপনি এই ছিদ্রের সাইজ বাড়াতে বা কমাতে পারেন। এখন নিশ্চয়ই বুঝতেই পারছেন যে ছিদ্রের সাইজ বাড়ালে ক্যামেরায় বেশি আলো ঢুকবে আর সাইজ কমালে কম আলো ঢুকবে। ক্যামেরার পরিভাষায় Aperture Value কে “f/ number” হিসেবে মাপা হয়। যেমন f/1.8, f/2.8, f/5.6, f/7.1, …যেহেতু নম্বর টা “denominator” এ আছে তাই f/1.8 > f/2.8 > f/7.1…মানে সোজা কথায় f/1.8 এ ক্যামেরায় বেশি আলো ঢুকবে f/7.1 এর তুলোনায়।

সেন্সর এ আলোর মাত্রা নির্ধারণ করা ছাড়াও Aperture এর আরো একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে। আপনারা নিশ্চই দেখে থাকবেন যে কিছু কিছু ছবিতে ব্যাকগ্রাউন্ড টা পুরো গায়েব (blurred বা defocussed) আবার কিছু ছবিতে দেখবেন ফোরগ্রাউন্ড থেকে ব্যাকগ্রাউন্ড পুরো পিন শার্প, সব স্পষ্ট । ছবিতে এই বৈচিত্র প্রদান করা হয় Aperture এর দ্বারা। বড় Aperture যেমন f/1.8, f/2.0 ব্যাকগ্রাউন্ড Blur করতে সাহায্য করে আর পিন শার্প ল্যান্ডস্কেপ ছবির জন্যে আপনাকে ছোট Aperture যেমন f/9, f/11..ব্যাবহার করতে হবে। Aperture এর এই তারতম্যের জন্য ছবিতে যে এফেক্ট হয় তাকেই Depth of Field বলে। Shallow Depth of Field মানে ব্যাকগ্রাউন্ড Defocussed – সাধারণত Macro, Portrait, Wildlife জাতীয় ছবিতে যা ব্যাবহার হয় আর Large/ deep Depth of Field মানে পুরো ছবিটাই Focussed – সাধারণত Landscape (Nature) ছবিতে ব্যাবহার করা হয়।

Shutter Speed – এটা বোঝা Aperture এর চেয়ে অনেক সোজা। Shutter Speed মানে ছবি তোলার সময় কতক্ষণ আপনার ক্যামেরার Shutter খোলা রইল ( Time Value বা TV বলা হয় Canon এ আর S বলা হয় Nikon এ)। Shutter Speed মাপা হয় Second এ। ১/৪০০০ second না ১/৬০ second নাকি ৩০ second – বুঝতেই পারছেন, ১/৬০ second ধরে ক্যামেরার shutter খোলা থাকলে তাতে বেশি আলো ঢুকবে ১/৪০০০ second এর তুলোনায়। এবার ধরুন আপনি চাইছেন কোহলির ঠিক সেই কভার ড্রাইভ মারার মুহুর্তের ছবি তুলবেন। আপনার চাই অত্যন্ত দ্রুত Shutter Speed যেমন ১/১০০০ সেকেন্ড। পর মুহুর্তেই মনে হল “বাহঃ, ঝর্ণা টা তো বেশ! পাথরের উপর জল গড়িয়ে পড়া দেখতে লাগে দুধের মতো অনেকটা।” আপনার ভরসা Slow Shutter speed যেমন ১/১০-২ সেকেন্ড।

ISO – ক্যামেরার সেন্সর কতটা সেন্সিটিভ, তা মাপার জন্য ISO দেখতে হবে। ধরুন আপনি Aperture আর Shutter Speed অপরিবর্তিত রেখে ISO ১০০ থেকে ধীরে ধীরে ২০০, ৪০০, ৮০০..বাড়াতে থাকলেন। দেখবেন যে ISO বাড়ানোর সাথে ক্যামেরায় ছবি আরো উজ্জ্বল হয়ে উঠেছে (মানে সেন্সর এর সেন্সিটিভিটি বাড়ছে)। আর হয়তো Grainy ব্যাপার টা বাড়ছে।
এবার আপনার প্রশ্ন হবে যে ISO বাড়ালে যদি ছবি তে Grainy ভাব (ক্যামেরার পরিভাষায় Noise বলে) আসে তাহলে তো ছবি খারাপ হওয়ার যোগান । কিন্তু ভাবুন একজন ফোটো জার্নালিস্ট, প্রায় রাতের অন্ধকারে একটা ক্রাইম হতে দেখল। তখন তো তাকে ছবির কোয়ালিটি ভুলে মুহুর্ত টা কে বন্দী করতে হবে, আর খুব দ্রুত (ধরুন ১/৫০০ সেকেন্ড) । তখন সেই জার্নালিস্ট কে ISO বাড়িয়ে দিয়ে তাড়াতাড়ি (fast shutter speed) ছবিটা তুলতে হবে যাতে শেষমেষ যে ছবিটা হবে তা যেন অন্ধকারাচ্ছন্ন না হয়ে যায়।

Exposure – কথাটার মানে ক্যামেরায় আপনার তোলা ছবিটা কতটা অন্ধকারাচ্ছন্ন না উজ্জ্বল । এই Exposure ঠিকঠাক রাখার উপর 50% নির্ভর করছে আপনার তোলা ছবির মান। বাকি 50% নির্ভর করছে Composition এর উপর (যা অন্য কোনো কোনো এপিসোডে আলোচনা করব)। তাই Exposure একটু ফসকালেই গেল। Exposure বেশী হলে মনে হবে ছবিটা জ্বলে গেছে আর কম হলে মনে হবে যে পুরোটাই কেমন অন্ধকার। Exposure ঠিক রাখার চাবিকাঠি শুধুমাত্র ৩টি – Aperture, Shutter Speed আর ISO ।

ফোটোগ্রাফার হিসেবে আমাদের উদ্দেশ্য প্রতিটা ছবিতে যেন এই Aperture, Shutter speed আর ISO ‘র Sweet spot টা ছুঁতে পারি। সৌভাগ্যবশত আধুনিক ক্যামেরার ব্রেন যথেষ্ঠ তীক্ষ্ম । তাই মোটামুটি পর্যাপ্ত আলোতে ক্যামেরায় Auto Settings করে রাখলে ক্যামেরা ঠিকঠাক Aperture, Shutter Speed আর ISO’র কম্বিনেশন বেছে নিতে পারবে যা কিনা ছবিতে Exposure ঠিক রাখবে। কিন্তু..এখানেই একটা বড় কিন্তু আছে। আমাদের বুঝতে হবে যে ক্যামেরার ব্রেন যতই তীক্ষ্ম হোক না কেন, তা ফোটোগ্রাফার এর ব্রেন এর চেয়ে কমা। তাই ক্যামেরা যে ভাবে ছবিটা দেখছে, আমি হয়তো সেভাবে দেখছিনা। আর আমি যেভাবে ছবি টা দেখছি ঠিক তেমনটা যাতে ক্যামেরাও দেখতে পায় তার একটাই উপায় । Auto Settings এর মায়া কাটিয়ে পা বাড়াতে হবে Manual Settings এর দিকে। ক্যামেরার ডায়াল AV/A বা TV/S বা M এ নিয়ে আসুন আর নিজে কন্ট্রোল করুন ক্যামেরার ব্রেন কে। প্র্যাকটিস , প্র্যাকটিস আর প্র্যাকটিস ।

ভাবছেন কিভাবে এগোবেন? নিচে আমি কটা ছবি দিয়ে ব্যাপার টা বোঝানোর চেষ্টা করেছি।
প্রত্যেক টা ছবির তলায় Caption এ Aperture, Shutter Speed আর ISO Value দেওয়া রইল – বলা বাহুল্য , এটা যে বেস্ট সেটিং আর আপনাকে যে এই সেটিং -ই ব্যাবহার করতে হবে, এরকম কোনো মানে নেই। আপনারা নিজের মতো এক্সপেরিমেন্ট করুন আর খুঁজে নিন নিজের ক্যামেরার Sweet Spot! দুটো ছবি (Exposure Triangle আর Aperture/ Shutter Speed/ ISO Chart) নেট থেকে নেওয়া । এই দুটো চার্ট কে আপনি প্রাইমারি গাইড হিসেবে ব্যাবহার করতে পারেন। বাকি ছবি নিজস্ব ।

আশা করছি এবার ব্যাপারটার জটিলতা একটু কাটল।

★★ Please make a comment using Facebook profile ★★

Shubham Palit

Author’s Facebook Profile Link:
Shubham Palit

অন্যান্য লেখা

Leave A Reply