৫ম পর্ব ★ ক্যামেরা বেসিক্স ★ শুভম পালিত

0
Share it, if you like it

প্রথমেই হাল্কা করে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি এই এপিসোড টা লিখতে একটু দেরি হলো বলে। মাঝে টুক করে ভেতনই ঘুরে এলাম যার অভিজ্ঞতা আপনাদের সাথে ভাগ করেছি গত সপ্তাহে।

ক্যামেরা নিয়ে এপিসোড গুলোর দ্বারা, প্রাথমিক আইডিয়া তৈরিতে আশা করি অনেকেরই কিছুটা হলেও লাভ হয়েছে। এরপর কি নিয়ে আলোচনা করা যায় অবচেতনে তাই ভেবেছি ভেতনই এর ট্রিপে। বাড়ি ফিরে ছবি বাছাই করতে গিয়ে দেখি কিছু ভাল শার্প ছবি আর কিছু (সংখ্যায় অনেক কম 😉 ) ব্লার্ড বা কেঁপে যাওয়া ছবি। ছোটখাটো একটা ইউরেকা মোমেন্ট পেলাম – এই শার্প আর ব্লার্ড ছবির পার্থক্য নিয়েই আজকের আলোচনা। হয়তো অনেকেই বুঝতে পেরে গেছেন – এই এপিসোড এর টপিক ‘ফোকাসিং’। ফোকাসিং এর ব্যাপার টা অনেকখানি টেকনিক্যাল – সেই সব টেকনিক্যাল ব্যাপার-স্যাপার এর ঝক্কি যতটা সম্ভব বাইপাস করে গোদা বাংলায় লিখতে গিয়ে একটু হোঁচট খেয়েছি। তবে আশা করি এপিসোড এর শেষে জটিলতা একটু হলেও কমবে।

খুব সাধারণ ভাবে বলতে গেলে ফোকাস কথাটার মানে আপনার তোলা ছবিতে সাবজেক্ট যেন হয় পিন-শার্প অর্থাৎ ধরুন আপনি কোনো বাচ্চার পোর্ট্রেট তুলেছেন। সেই ক্ষেত্রে দেখতে হবে যে তার চোখের মণি যেন পরিস্কার বোঝা যায়। সেটা না হলেই আপনার তোলা ছবি জলে গেল। এই চোখের উপর ঠিকঠাক তাক করার (ফোকাস করার) ২টি উপায় – Autofocus আর Manual focus। Autofocus ক্যামেরার ব্রেন চালিত আর Manual focus ফোটোগ্রাফার এর মস্তিষ্ক চালিত। এইখানে বলে রাখা ভাল যে আজকের দিনে ক্যামেরা অার লেন্স এতটাই অগ্রগতি করেছে যে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই (শতকরা ৯৯ ভাগ) আপনি Autofocus এর উপর চোখ বুজে ভরসা করতে পারেন। তাই আমরা আগে Autofocus নিয়েই কথা বলে বলে নেব আর শেষে Manual focus এর ব্যাপারটা ও বুঝব।

DSLR ক্যামেরার লেন্সে একটা AF/MF সুইচ থাকে যা দিয়ে আপনি Autofocus বা Manual focus সেট করতে পারেন। এইবার যদি আপনার মনে হয় যে Autofocus যদি ৯৯% accurate হয়, তাহলে তা বোঝার দরকার কি? প্রয়োজন এই জন্যেই কারন অনেক সময় দেখবেন ভুল মোড সিলেক্সন এর কারনে ক্যামেরা সিন এর ভুল যায়গায় autofocus করে ফেলবে ( চোখের বদলে নাকে) আর কিছু ক্ষেত্রে একেবারেই ফোকাস করতে পারবেনা (বাচ্চা তো নট নরন চরন হবেনা) – দেখবেন সব ছবিই কেঁপে গেছে।

ক্যামেরার Autofocus ৩টি জিনিসের উপর নির্ভরশীল – আলোর মাত্রা, সাবজেক্ট এর Contrast আর ক্যামেরা/ সাবজেক্ট এর গতি। এই ৩ এর sweet spot কে খোঁজার জন্যে ক্যামেরার সেন্সর এ কিছু Autofocus Points থাকে। Beginners DSLR এ সাধারনত ৯টা point থাকে আর মিড-লেভেল গুলিতে ৪৫/৫‍১ টা Point অবধি ও থাকে। যত বেশি Point থাকবে, ক্যামেরা তত তাড়াতাড়ি ফোকাস করতে পারবে। এই Point গুলির কাজ হলো সাবজেক্ট কে ফোকাস এ আনা যাতে ক্লিক করার সাথে যে ছবিটা উঠবে তা যেন শার্প হয়। তবে শুধু কত গুলো point রয়েছে, তার চেয়েও অনেক বেশী প্রয়োজন, Point গুলির সদুপযোগ।

এইখানে বলে রাখি, ২টি Autofocus mode এর কথা – ১. Single-Shot Autofocus ২. Continuous (Servo) Autofocus.

Stationary Subject এর জন্যে Single Shot Autofocus দিব্যি চলবে। ক্যামেরার লেন্স সাবজেক্ট (ধরুন বাচ্চার মুখ) এর উপর তাক করে Shutter অর্ধেক টিপুন। সবসময় মনে রাখবেন, একেবারে মাঝের Point টি সবচেয়ে sensitive আর তাই চেষ্টা করবেন শুধু এই Point টি কে এই ক্ষেত্রে Active রাখার, অন্য Point গুলি কে Inactive করে দিন। না হলে ক্যামেরার যে Point টা নাকের উপর রয়েছে সেটা যদি ফোকাস নিয়ে নেয় আর চোখের উপর যে Point টা রয়েছে সেটা ফোকাস না নিয়ে থাকলেও ক্যামেরা ‘বিপ’ আওয়াজ দিয়ে সিগনাল দেবে যে ফোকাস হয়ে গেছে। আপনি নিশ্চিন্তে শাটার টেপার পর দেখবেন বাচ্চার নাক পিন-শার্প কিন্তু চোখ ব্লার্ড। অতএব ছবি টা গেল। তাই শুধু Central Point কে Active করে তাকে চোখের উপর ফেলে অর্ধেক শাটার টিপুন। মডেল অনুযায়ী চোখের উপর সবুজ বা লাল আলো জ্বলে উঠলে বুঝবেন একেবারে ঠিক ফোকাস হয়েছে। এইবার Shutter অর্ধেক টেপা অবস্থায় ছবিটা গত এপিসোড এর কথা মনে করে Compose করার চেষ্টা করুন। ধরুন সাবজেক্ট এখন ফ্রেম এর মাঝে রয়েছে তো আপনি Shutter অর্ধেক টিপেই ক্যামেরা মুভ করে চেষ্টা করুন সাবজেক্ট কে একটু সাইড এ নিয়ে আসার (Rule of 3rd) । তারপর মনের মতন যায়গায় সাবজেক্ট কে এনে Shutter টা পুরোটা Press করুন। দেখবেন দারুন শার্প ছবি পেয়েছেন। গোটা ব্যাপার টা এই মুহুর্তে একটু কষ্টকর মনে হলেও একটু প্র্যাকটিস এ ২-৩ দিনে রপ্ত করতে পারবেন।

এ তো গেল Single Shot Autofocus এর গল্প। এবার দেখা যাক Continuous বা Servo Autofocus। Action যেমন Wildlife বা আগের উদাহরণ এর বাচ্চা টি দৌড় লাগালে, তার ছবি আপনি Single Point এ তুলতে পারবেন না। কারন এই মোডে ক্যামেরা সাবজেক্ট এর Movement কে Track করে সেই মতো Adjust করতে পারেনা। তাই Action ছবি তুলতে Autofocus মোড পাল্টে Continuous বা Servo করতে হবে। তাহলেই বাচ্চা টি দৌড়লেও ৮০ ভাগ ক্ষেত্রে ক্যামেরা ঠিক তার মুখের উপর ফোকাস করবে। এই ক্ষেত্রেও আমার অভিজ্ঞতায় শুধু Central Point Active করে বেটার রেজাল্ট পেয়েছি। Mid level ক্যামেরা গুলিতে শুধু Central point না করে Central zone এর Point গুলি কে active করা যায় একটু বেশী accuracy পাওয়ার জন্যে। এতটা পড়ার পর মনে হতে পারে যে অধিকাংশ সময় যদি শুধু Central Point Active করেই ছবি তুলতে হয় তাহলে প্রশ্ন হবে যে ক্যামেরায় এতগুলো Focussing Points কেন দেওয়া হয়? উত্তর টা হলো, আপনি Focus points inactive করেন যাতে ক্যামেরা ভুল যায়গায় ফোকাস না করে। কিন্তু যে ক্ষেত্রে ভুল করার কোনো সুযোগ নেই যেমন নীল আকাশে একটা পাখি উড়ছে আর আপনাকে খুব দ্রুত ফোকাস করতে হবে, সেই সময় সব Point Active করে রাখলে ভাল। আপনার ক্যামেরায় যদি ৪৫ টা Point থাকে তাহলে নিশ্চিত থাকুন কোনো একটা Point ঠিক পাখির উপর ফোকাস নিয়ে নেবে আর আপনি নিজের মনের মতো শট পেয়ে যাবেন। ক্যামেরায় ৯টা Point থাকলে সেই চান্স টা অনেকটাই কনে গেল। ব্যাস এটুকুই যা অন্তর!!

এবার চট করে Manual focus দেখে আপনার ধৈর্য্যের পরিক্ষা নেওয়া শেষ করব। কিছু সময় ক্যামেরার Autofocus হাত তুলে দেবে। খুব কম আলো বা সিন এ খুব কম contrast / texture থাকলে, দেখবেন ক্যামেরা Autofocus করতে পারছেনা আর লেন্স টা শুধু সামনে-পিছনে মুভ করছে (ক্যামেরার পরিভাষায় যাকে Focus Hunting বলে)। এটা কোনো Fault না আর ভাববেন না যে ক্যামেরা খারাপ হয়ে গেছে। এই সময় আপনাকে লেন্স এর উপর AF/MF সুইচ টি MF অর্থাৎ Manual Focus এ আনতে হবে। তারপর লেন্স এর Focus Ring হাতে করে ঘুড়িয়ে ফোকাস করতে হবে। মনে রাখবেন, সুইচ MF এ না করে লেন্স এর Focus ring ঘোড়ালে লেন্স খারাপ হতে পারে যদিও কিছু লেন্স এ Full Time Manual Override function থাকে অর্থাৎ MF না করেও আপনি focus ring ঘোড়াতে পারবেন। ফোকাস করার পরে শুধু শাটার টেপার অপেক্ষা।

Wildlife তুলতে গিয়ে Back-button focussing এর ব্যাবহার শিখেছি। এর দ্বারা Shutter Button এর বদলে ক্যামেরার পিছনে থাকা একটি Button দিয়ে ফোকাস করতে হয়। DSLR এর Custom Settings এ গিয়ে Shutter button থেকে ফোকাসিং Disable করে পিছনের Button টি কে Enable করে নিতে হয়। কিছু মডেলে আবার একটা Dedicated Back Button থাকে। দু’ টোর ই লক্ষ্য এক, অর্থাৎ Shutter button ফোকাসিং + ছবি তোলার বদলে, শুধুমাত্র ছবি তোলার জন্যে ব্যাবহৃত হয় আর তাই ক্যামেরার স্পিড অনেকটা বেড়ে যায়। ক্যামেরার মডেল অনুযায়ী Youtube এ পেয়ে যাবেন তাতে কি ভাবে Back button focussing করবেন।

এ তো হলো, বেসিক ফোকাসিং এর ব্যাপার। অন্য সব কিছুর মত, ফোকাসিং কে একেবারে পারফেক্ট করার একটাই উপায় – প্র্যাকটিস আর আরও বেশী প্র্যাকটিস। তাই বাড়ির বাগান থেকে আসমুদ্র হিমাচল, যা কিছু সাবজেক্ট পাবেন তার দিকেই ক্যামেরা তাক করুন আর ফোকাস মানে Concentrate করে ফোকাস করুন। আপনার লক্ষ্য বাচ্চার চোখ বা ফুলের কুঁড়ি বা মাঠে শুধু ফুটবল টি।

কয়েকটা নেট থেকে নেওয়া ছবি দিলাম। আশা করি আপনারা অলরেডি আপনাদের ক্যামেরার সাথে আরও বেশী সময় কাটাচ্ছেন। ভাল থাকবেন।

অন্যান্য পর্ব নিচের লিঙ্কে পাবেন

All Other Post By Shubham Palit

Shubham Palit

Author’s Facebook Profile Link:
Shubham Palit

অন্যান্য লেখা

Leave A Reply