৩২ নং মুরারিপুকুর

কাল সন্ধ্যায় বৃষ্টি নেমেছিল ঝমঝমিয়ে । ব্রিটিশ আমলের “বিপ্লবী দূর্গ” মুরারিপুকুর লেন । আমি গিয়েছিলাম শ্রী অরবিন্দের স্মৃতি সন্ধানে ।

“হ্যাঁ, দাদা শুনেছি সেখানে বোমা রাখা থাকত !” রাতুল সুইস্টসের ভদ্রলোক মনে আশা জাগালেন । অরবিন্দের সংগ্রামী পরিকল্পনা , আইরিশদের ঢঙে তৈরী বোমার কারখানাটির একটা প্রস্তর খণ্ডও যদি পাই জীবন ধন্য আমার ! রাস্তা পেরতেই হতাশ হলাম ।

“বোমার মাঠটা এখনও আছে । তবে সেখানে আর কিছুই তো অবশিষ্ট নেই ।”

আমি মুরারিপুকুর লেন খুঁজে পেলাম । তবে ৩২ নং বাড়িটি তবে নেই ? সেখানে কেমিষ্ট উল্লাসকর দত্তের হাতে তৈরী বোমা যায় মজফ্ফরপুরে , অত্যাচারী কিংসফোর্ডের বুক ফুঁড়ে দেবে বলে ! সন্ন্যাসীর বেশে উপেন্দ্রনাথ দিতেন গীতার পাঠ । বারীন্দ্র ছিল , ছিল প্রফুল্ল । দেওঘরে প্রথম তৈরী বোমার টেস্টিং-এ তার প্রাণ যায় । স্বামীজির আদর্শ তাদের রন্ধ্রে রন্ধ্রে । ব্রম্ভচারী তরুণ দলের নেতা বিলেত ফেরত শ্রী অরবিন্দ । প্যারিস থেকে নানা বিস্ফোরক তৈরীর ট্রেনিং ও ম্যানুয়াল নিয়ে ফিরেছেন হেম । দিকে দিকে তৈরী হচ্ছে টাস্কফোর্স ! মুরারিপুকুর দিচ্ছে স্বাধীনতার ডাক ।এখানেই সূচনা হল অগ্নিযুগ …!

“তবে দাদা এক বয়স্ক ভদ্রলোক আছেন । চম্পক দা । মুরারিপুকুরের ওই বোমা মাঠ নিয়ে অনেক বই লিখেছেন । আপনি একবার ওখানে গিয়ে দেখতে পারেন । মুরারিপুকুর সংবাদ নামে একটা পত্রিকা চালান ।

শুনে একটু অবাক হলাম । মিনিট পাঁচেকের অটো । দেখি পত্রিকার অফিসে তালা ঝুলছে । একটা লাইটের দোকানে একটু খোঁজ করতেই বাড়ির ডোরবেল দিলাম । বৃদ্ধ সাদরে আমন্ত্রণ করলেন ।

“ওয়েলকাম ইয়ং ম্যান ! তুমি ঠিক জায়গাতেই এসেছ !….”

এরপর যা পেলাম , বুঝলাম “৩২ নং মুরারিপুকুর” বারীন্দ্র ঘোষের স্বপ্নের ব্রিটিশ মারার কারখানাটা দিব্যি আছে ১০৯ বছর পেরিয়েও । তবে ঠিকানা বদলে স্থান পেয়েছে বৃদ্ধের লেখা পুস্তিকাগুলিতে ।
“শ্রী অরবিন্দের -বন্দেমাতরম- পত্রিকার অফিস বাড়িটা এখনও আছে জানো? সুবোধ মল্লিকের বাড়ি!”

অবাক হই । যতই প্রোমোটিং , কমপ্লেক্স শহরটাকে আধুনিক করে তুলুক , কলকাতা কিন্তু সশস্ত্র স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস নিয়েই বেঁচে থাকবে !

Article By: Saikat Neogy

Source:

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেন

পাগলের প্রলাপ

আমার নিঃশব্দ কল্পনায় দৃশ্যমান প্রতিচ্ছবি, আমার জীবনের ঘটনা, আমার চারপাশের ঘটনার কেন্দ্রবিন্দু থেকে লেখার চেষ্টা করি। প্রতিটি মানুষেরই ঘন কালো মেঘে ডাকা কিছু মুহূর্ত থাকে, থাকে অনেক প্রিয় মুহূর্ত এবং একান্তই নিজস্ব কিছু ভাবনা, স্বপ্ন। প্রিয় মুহূর্ত গুলো ফিরে ফিরে আসুক, মেঘে ডাকা মুহূর্ত গুলো বৃষ্টির সাথে ঝরে পড়ুক। একান্ত নিজস্ব ভাবনা গুলো একদিন জীবন্ত হয়ে উঠবে সেই প্রতীক্ষাই থাকি।

Create Account



Log In Your Account