রামকৃষ্ণ ও বিবেকানন্দের কথোপকথন

0
লেখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

একদিন স্বামী বিবেকানন্দ নিজের জীবন নিয়ে হতাশ হয়ে গুরু রামকৃষ্ণের কাছে গেলেন। তিনি গুরুকে জীবন সম্পর্কে প্রশ্ন করলেন।
স্বামী বিবেকানন্দ: আমি অবসর সময় খুঁজে পাচ্ছি না। জীবন আমার জন্য কঠিন হয়ে উঠেছে।
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  কাজ তোমাকে ব্যাস্ত করবে কিন্তু সৃজনশীলতা তোমাকে অবসর দেবে।
স্বামী বিবেকানন্দ:  জীবন এখন কেন এত জটিল ?
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  জীবনের বিশ্লেষণ বন্ধ করো। .. এটা জীবনকে আরও জটিল করে তোলে।
স্বামী বিবেকানন্দ:  কেন আমরা অসুখী?
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  উদ্বেগ তোমার অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। তাই তুমি অসুখী।
স্বামী বিবেকানন্দ:  কেন ভাল মানুষ সবসময় কষ্ট পায়?
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  ঘর্ষণ ছাড়া হীরা মসৃণ করা যায় না। আগুন ছাড়া সোনা বিশুদ্ধ হয় না। ভাল মানুষ পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যায়, এটা তাদের ভোগান্তি নয়। এই অভিজ্ঞতা দিয়ে তাদের জীবন আরও সুন্দর হয়ে যায়, তিক্ত নয়।
স্বামী বিবেকানন্দ:  আপনি কি বলতে চাচ্ছেন যে এইরকম অভিজ্ঞতা উপকারী?
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  হ্যাঁ। সবসময় অভিজ্ঞতা হলো কঠিন শিক্ষকের মত। যে শিক্ষক তোমাকে আগে পরীক্ষার সম্মুখীন করে এবং পরে শিক্ষা দেয়।
স্বামী বিবেকানন্দ:  অনেক সমস্যার কারণে আমরা জানি না আমরা কোথায় যাচ্ছি …
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  যদি তুমি বাইরে তাকাও তাহলে বোঝবে না কোথায় যাচ্ছো। যদি ভেতরটা দেখো তুমি বোঝতে পারবে তুমি কোথায় যাচ্ছো। চোখ আমাদের দৃষ্টি দেয় আর হৃদয় আমাদের উপায় দেখায়।
স্বামী বিবেকানন্দ:  অসফলতা কি সফল পথে চলার চেয়েও বেশি কষ্টদায়ক ?
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  সফলতা অন্যদের দ্বারা নির্ধারিত একটি পরিমাপ। সন্তুষ্টি নিজের দ্বারা নির্ধারিত একটি পরিমাপ।
স্বামী বিবেকানন্দ:  কঠিন সময়ে, কীভাবে আপনি অনুপ্রাণিত থাকেন?
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  সর্বদা তুমি কতদূর যেতে পেরেছো তা দেখো, তুমি কতদূর যেতে পারো নি তা হিসাব করতে যেয়ো না। সবসময় তোমাকে কারা ভালোবাসে তা দেখো, কে ভালোবাসে না তা হিসাব করতে যেয়ো না।
স্বামী বিবেকানন্দ: মানুষ সম্পর্কে আপনার কী অবাক লাগে?
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  যখন তারা কষ্ট করে তখন তারা অভিযোগ করে ‘এই কষ্ট কেনো আমাকে দেয়া হলো’। কিন্তু যখন তারা সফল হয় তখন তারা বলে না, ‘এই সফলতা কেনো আমাকে দেয়া হল?’
স্বামী বিবেকানন্দ:  কীভাবে আমি জীবন থেকে সেরাটা পেতে পারি?
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  তোমার অতীতকে অনুশোচনা ছাড়াই মেনে নাও। আস্থার সঙ্গে তোমার বর্তমান পরিচালনা কর। ভয় ছাড়াই ভবিষ্যতের জন্য প্রস্তুত হও।
স্বামী বিবেকানন্দ:  একটি শেষ প্রশ্ন। কখনো কখনো আমি মনে করি আমার প্রার্থনার উত্তর দেওয়া হয় না।
রামকৃষ্ণ পরমহংস:  সব প্রার্থনার উত্তর দেওয়া হয়। বিশ্বাস রাখো এবং ভয় ছেড়ে দাও। জীবন কোন সমস্যা নয় যে সমস্যার সমাধান করতে হবে, জীবন একটি রহস্য যার সমাধান করতে হবে। বিশ্বাস কর, যদি তুমি জানো কিভাবে বাঁচতে হয় তবে জীবন বিস্ময়কর সুন্দর।

 পৃথিবী কত সুন্দর এটা তোমাকে যে কেউ বোঝাতে পারবে কিন্তু এর মধ্যে খুব কম মানুষই তোমাকে বোঝাতে পারবে যে, তুমি পৃথিবীতে কত সুন্দর। 


লেখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

লিখে পাঠাতে চান নিজের অভিজ্ঞতা বা লেখা ? পাঠান এই ইমেল-ঠিকানায়: i@pagolerprolap.in অথবা নিচে কমেন্ট করুন !

comments

About Author

এই প্রবন্ধ বা পোষ্ট লেখকের কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে এই লেখাটি নেওয়া হয়েছে, যদি কেউ এই লেখাটির লেখকের সন্ধান জেনে থাকেন, দয়া করে অবশ্যই জানাবেন। আমাদের email করুন এই ঠিকানায়, i@pagolerprolap.in -- সঞ্জয় হুমানিয়া

Leave A Reply