দুবলহাটি রাজবাড়ি – নওগাঁ

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দুবলহাটি রাজবাড়ি – নওগাঁ 😍😍 বাংলাদেশ

লেখা ও ছবি: Khalid Mahmud

২৭ তারিখ সকালে বলিহার রাজবাড়ি দেখে রওনা দিয়েছিলুম শহর থেকে ছয় কি:মি: দুরে ১৭৯৩ সালে তৈরি দুবলহাটি রাজবাড়ি দেখতে। ঢাকা থাকতেই রাজবাড়ির পিকচারগুলি দেখে সো এক্সাইটেড ছিলাম। আর যখন সামনাসামনি প্রথম রাজপ্রাসাদের সামনের রোমান স্টাইলের বড় বড় পিলারগুলো চোখে পড়লো, মেবি তৎক্ষনাৎ স্পিচলেস হয়ে গেছিলুম মিনিট পাঁচেকের জন্যে!

আমার দেখা ‘নর্থবেঙ্গল ট্যুর’এর সবচাইতে বেষ্ট রাজপ্রাসাদ ছিলো এটা… এখন অবশ্য রাজবাড়ির কিছুই নেই, জাষ্ট টার্মটা দাড়িয়ে থাকা ছাড়া। প্যাঁচানো সিড়ি, গলি ঘুপচির অসংখ্য রুম, আর বাকে বাকে মৌমাছির বানানো মৌচাকই শুধু এখন রাজবাড়িকে ঘিরে আছে। তাছাড়া কোনো একরুমে কনডমের প্যাকেটও আবিস্কার করেছিলুম আমি আর ইরফান 😉

দুবলহাটী রাজবাড়িটি ৫ একর এলাকাজুড়ে বিরাট এবং প্রায় দুইশ’ বছরের ঐতিহাসিক প্রাচীন স্থাপনা। একসময় এই বিরাট দুবলহাটি রাজপ্রাসাদটিতে সাড়ে তিন’শত ঘর ছিল। ছিল ৭টি আঙ্গিনা। প্রাসাদের ভিতর কোনটি ছিল ৩ তলা, আবার কোনটি ছিল ৪ তলা ভবন। ১টি গোল্ডেন সিলভার ও ১টি আইভরির তৈরি সিংহাসন ছিলও প্রাসাদে। অবশ্য ব্রিটিশ আমলে ইংরেজরা সিংহাসন দু’টি নিয়ে যায়। রাজবাড়িটির স্থাপনকাল এবং নির্মাণকারী নিয়ে অনেক কিংবদন্তী চালু আছে। যদিও এই পোষ্টে সেসব আনবোনা, বাট কিংবদন্তীগুলি ভালো… কারো জানার ইচ্ছে হলে গুগল থেকে জেনে নিতে পারেন!

দুবলহাটির রাজবাড়ির রাজা হরনাথ রায় অধিক প্রতাপশালী ছিলেন। ১৮৯২ খ্রিষ্টাব্দ এর দিকে রাজা হরনাথ সপরিবারে চলে যান ভারতে। রাজবংশের স্মৃতিস্বরূপ থেকে যায় বিশাল সুরম্য অট্টালিকা দুবলহাটি রাজবাড়ী।

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেন
0%
0%
Awesome
Share.

About Author

বলার কিছু নাই ... প্রোফাইলে যেমন দেখতেছেন, তেমনই আমি!! https://www.facebook.com/profile.php?id=100005604526551

Leave A Reply